০৮:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
                       

তুরস্কের নতুন নাম তুর্কিয়ে; কিন্তু কেন পরিবর্তন করা হলো দেশের নাম?

মু. মিজানুর রহমান মিজান
  • প্রকাশ: ১০:২৬:১৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ জুন ২০২২
  • / ২৭৫৮ বার পড়া হয়েছে

রিপাবলিক অব তুর্কিয়ের পতাকা


Google News
বিশ্লেষণ-এর সর্বশেষ নিবন্ধ পড়তে গুগল নিউজে যোগ দিন

বিশেষ শর্তসাপেক্ষে এবং স্বল্পমূল্যে এই ওয়েবসাইটটি সামাজিক কাজে নিয়োজিত ব্যক্তিবর্গ কিংবা বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নিকট বিক্রি করা হবে।

রাষ্ট্রীয় নাম পরিবর্তন করেছে তুরস্ক (Turkey)। রিচেপ তায়েপ এরদোয়ানের প্রশাসন দেশের নাম বদলের জন্য জাতিসংঘে আবেদন করলে তা সাথে সাথেই অনুমোদন করে, আর এতেই ইউরেশিয়ান রাষ্ট্র তুরস্ক পেল নতুন নাম। তুরস্কের নতুন নাম হলো তুর্কিয়ে এবং নতুন দাপ্তরিক বা অফিসিয়াল নাম রিপাবলিক অব তুর্কিয়ে (Turkish: Türkiye Cumhuriyet)।

তুরস্ক বা তুর্কি নামের দেশটি এখন থেকে ‘তুর্কিয়ে’ নামে বিশ্ববাসীর কাছে পরিচিতি পাবে; ইংরেজিতে এর নাম এখন থেকে Turkey-এর পরিবর্তে Türkiye লেখা হবে। তুরস্কের বর্তমান রাষ্ট্রীয় নাম ইংরেজিতে Republic of Türkiye এবং তুর্কি ভাষায় Türkiye Cumhuriyeti লেখা হয়।

রিপাবলিক অব তুর্কিয়ে (Republic of Türkiye)

২০২২ সালের জুন মাসের ১ তারিখ তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলুর পক্ষ থেকে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের কাছে একটি চিঠি পাঠানো হয়। সেই চিঠিতে আবেদন করা হয়েছিল যে, জাতিসংঘের পক্ষ থেকে যেন তুরস্ক (Turkey)-এর পরিবর্তে তুর্কিয়ে (Türkiye) নাম ব্যবহার করা হয়। ‌আবেদনটি সঙ্গে সঙ্গেই এই অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী গত ৩১ মে জাতিসংঘ ও অন্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর কাছে তুরস্কের নাম পরিবর্তন করে চিঠি পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছিলেন।

তুরস্কের নাম পরিবর্তন করা হলো কেন?

তুরস্কের নাম পরিবর্তন করে তুর্কিয়ে রাখার পেছনে বিশেষ রাজনৈতিক, আন্তর্জাতিক বা অন্য কোনো ধরনের সংকটের কারণ ছিল না। সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কারণেই পরিবর্তিত হয়েছে তুরস্কের নাম। ২০২১ সালে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিচেপ তায়েপ এরদোয়ান দেশটির নাম পরিবর্তন করে তুর্কিয়ে রাখার ঘোষণা দিয়েছিলেন। দেশের নাম পরিবর্তনের পক্ষে তিনি যুক্তি দিয়ে বলেছিলেন যে, তুর্কিয়ে শব্দটি তাঁদের সংস্কৃতি, ধর্মীয় মূল্যবোধের খুবই কাছাকাছি। তুর্কি ভাষাতেও Turkey শব্দটিকে তুর্কিয়ে বলা হয়।’

তুরস্কের বেশিরভাগ মানুষ দেশের নাম তুর্কিয়ে বলেই জানেন।

উপর্যুক্ত কারণেই তুরস্কের নাম পরিবর্তন করে তুর্কিয়ে রাখা হয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার তথ্য সংরক্ষিত রাখুন

লেখকতথ্য

মু. মিজানুর রহমান মিজান

মু. মিজানুর রহমান মিজান একজন স্বাধীন শিক্ষামূলক লেখক। তিনি শিক্ষা গবেষণায় বেশ আগ্রহী। যৌথভাবে কিছু গবেষণায়ও অংশ নিয়েছেন।

বিশেষ শর্তসাপেক্ষে এই ওয়েবসাইটটি সামাজিক কাজে নিয়োজিত ব্যক্তিবর্গ কিংবা বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নিকট বিক্রি করা হবে।

তুরস্কের নতুন নাম তুর্কিয়ে; কিন্তু কেন পরিবর্তন করা হলো দেশের নাম?

প্রকাশ: ১০:২৬:১৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ জুন ২০২২

রাষ্ট্রীয় নাম পরিবর্তন করেছে তুরস্ক (Turkey)। রিচেপ তায়েপ এরদোয়ানের প্রশাসন দেশের নাম বদলের জন্য জাতিসংঘে আবেদন করলে তা সাথে সাথেই অনুমোদন করে, আর এতেই ইউরেশিয়ান রাষ্ট্র তুরস্ক পেল নতুন নাম। তুরস্কের নতুন নাম হলো তুর্কিয়ে এবং নতুন দাপ্তরিক বা অফিসিয়াল নাম রিপাবলিক অব তুর্কিয়ে (Turkish: Türkiye Cumhuriyet)।

তুরস্ক বা তুর্কি নামের দেশটি এখন থেকে ‘তুর্কিয়ে’ নামে বিশ্ববাসীর কাছে পরিচিতি পাবে; ইংরেজিতে এর নাম এখন থেকে Turkey-এর পরিবর্তে Türkiye লেখা হবে। তুরস্কের বর্তমান রাষ্ট্রীয় নাম ইংরেজিতে Republic of Türkiye এবং তুর্কি ভাষায় Türkiye Cumhuriyeti লেখা হয়।

রিপাবলিক অব তুর্কিয়ে (Republic of Türkiye)

২০২২ সালের জুন মাসের ১ তারিখ তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলুর পক্ষ থেকে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের কাছে একটি চিঠি পাঠানো হয়। সেই চিঠিতে আবেদন করা হয়েছিল যে, জাতিসংঘের পক্ষ থেকে যেন তুরস্ক (Turkey)-এর পরিবর্তে তুর্কিয়ে (Türkiye) নাম ব্যবহার করা হয়। ‌আবেদনটি সঙ্গে সঙ্গেই এই অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী গত ৩১ মে জাতিসংঘ ও অন্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর কাছে তুরস্কের নাম পরিবর্তন করে চিঠি পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছিলেন।

তুরস্কের নাম পরিবর্তন করা হলো কেন?

তুরস্কের নাম পরিবর্তন করে তুর্কিয়ে রাখার পেছনে বিশেষ রাজনৈতিক, আন্তর্জাতিক বা অন্য কোনো ধরনের সংকটের কারণ ছিল না। সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কারণেই পরিবর্তিত হয়েছে তুরস্কের নাম। ২০২১ সালে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিচেপ তায়েপ এরদোয়ান দেশটির নাম পরিবর্তন করে তুর্কিয়ে রাখার ঘোষণা দিয়েছিলেন। দেশের নাম পরিবর্তনের পক্ষে তিনি যুক্তি দিয়ে বলেছিলেন যে, তুর্কিয়ে শব্দটি তাঁদের সংস্কৃতি, ধর্মীয় মূল্যবোধের খুবই কাছাকাছি। তুর্কি ভাষাতেও Turkey শব্দটিকে তুর্কিয়ে বলা হয়।’

তুরস্কের বেশিরভাগ মানুষ দেশের নাম তুর্কিয়ে বলেই জানেন।

উপর্যুক্ত কারণেই তুরস্কের নাম পরিবর্তন করে তুর্কিয়ে রাখা হয়।