বুধবার, অক্টোবর ২৭, ২০২১

স্তন ক্যান্সার: কোন শ্রেণির নারীরা স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারেন?

স্তন ক্যান্সার বা ব্রেস্ট ক্যান্সার (breast cancer) বর্তমানে খুবই আলোচিত একটি রোগের নাম। দিনে দিনে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। জরিপ মতে,  বিশ্বে প্রতি আটজনের মধ্যে একজন নারী স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছেন।

স্তন ক্যান্সার শুধু নারীরাই আক্রান্ত হন না, এই ক্যান্সারে পুরুষেরাও আক্রান্ত হন। স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি নারী ও পুরুষ, উভয়ের জন্যই রয়েছে। তবে রোগটিতে পুরুষের তুলনায় নারীর আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

আন্তর্জাতিক সংস্থা আইএআরসি’র হিসেবে, নারী ক্যান্সার রোগীদের মধ্যে ১৯% স্তন ক্যান্সারে ভোগেন। নারী-পুরুষ মিলে ৮.৩%।

বাংলাদেশে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্তের হার দিন দিন বাড়ছে।  বাংলাদেশে নারীরা যেসব ক্যান্সারে আক্রান্ত হন তার মধ্যে স্তন ক্যান্সার শীর্ষে রয়েছে। 

আইএআরসি বলছে, বাংলাদেশে প্রতি বছর ১৩ হাজারের বেশি নারী নতুন করে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। এবং স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে প্রতি বছর মারা যান ৬৭৮৩ জন।

স্তনের কিছু কোষ অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেলে, অতিরিক্ত কোষগুলো বিভাজনের মাধ্যমে টিউমারে পরিণত হয়; সেটি রক্তনালীর লসিকা ও অন্যান্য মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে, একে স্তন ক্যান্সার বলে।

স্তন ক্যান্সার সচেতনতার মাস অক্টোবর। ২০২১ সালের স্তন ক্যান্সার সচেতনতার মাস উপলক্ষে আয়োজিত সচেতনতামূলক এক র‍্যালিতে জানানো হয়েছে ৯ শ্রেণির নারীর স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। নিচে এই নারীদের এই ৯ টি শ্রেণি উল্লেখ করা হলো-

  1. বয়স ৩৫ বছরের ঊর্ধ্বে হলে
  2. স্তন ক্যান্সারের পারিবারিক ইতিহাস থাকলে
  3. বেশি বয়সে প্রথম সন্তান ধারণ করা অথবা নিঃসন্তান থাকা
  4. সন্তানকে বুকের দুধ পান না করানো
  5. দীর্ঘদিন ধরে জন্মনিয়ন্ত্রণের জন্য পিল বা বড়ি খাওয়া
  6. ১২ বছর বয়সের আগে প্রথম ঋতুস্রাব হওয়া অথবা ৫০ বছর পরে গিয়ে ঋতুস্রাব বন্ধ হওয়া।
  7. অত্যধিক চর্বিযুক্ত খাদ্যাভ্যাস
  8. ধূমপান, মদ্যপান এবং তামাকজাতীয় দ্রব্যে আসক্ত থাকা
  9. দীর্ঘদিন তেজস্ক্রিয় পদার্থের সংস্পর্শে থাকা।
ব্রেস্ট লাম্প ঠিক এভাবে নিজে নিজে চেক করা যেতে পারে
নিজের ব্রেস্ট বা স্তনের যত্ন নিন | ছবি: ucsfhealth.org

একটু সচেতন থাকলেই এই ব্যাধিকে প্রতিরোধ করা যায়।  ঝুঁকিতে থাকা এই ৯ শ্রেণির নারী নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার মাধ্যমে খুব সহজে এ বিপদ এড়িয়ে চলতে পারেন।  ৩৫ বছররের ওপরের নারীরা ম্যারেনাগ্রাফিক স্ক্রিনিং করে এ থেকে পরিত্রান পেতে পারেন।  ২০ বছর বয়স থেকেই নিজে নিজে স্তন পরীক্ষা করার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা

জারিন তাসনিম
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এবং স্বাধীন লেখক।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
এখানে আপনার নাম লিখুন

এই বিভাগের সাম্প্রতিক নিবন্ধ