০২:১০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
                       

দর্শন কাকে বলে বা দর্শনের সংজ্ঞা কী?

  • প্রকাশ: ১০:৪৮:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২
  • / ৪৭৪৯৮ বার পড়া হয়েছে

দর্শন বা ফিলোসোফি বলতে আসলে কী বোঝানো হয়?

দর্শনের সুস্পষ্ট কোনো সংজ্ঞা এক কথায় অল্প কথায় প্রদান করা সম্ভব নয়। তবে ইতিহাস সাক্ষী, যুগে যুগে ব্যক্তি বিভিন্নভাবে দর্শনের সংজ্ঞা দিয়েছেন বা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। ইতিহাসখ্যাত দার্শনিকগণ যে সকল সংজ্ঞা প্রদান করেছেন তা পর্যালােচনা করলে যে সারসংক্ষেপ পাওয়া যায় তাতে দেখা যায় যে, প্রত্যেক দার্শনিকই জগৎ জীবনের ব্যাখ্যা, জগতের সঙ্গে জীবনের সম্পর্ক, স্রষ্টার সংগে সৃষ্টির সম্পর্ক ইত্যাদির ওপর গুরুত্বারােপ করেছেন।

দর্শনের কয়েকটি প্রামাণ্য সংজ্ঞা

কয়েকজন বিখ্যাত দার্শনিক কর্তৃক প্রদত্ত দর্শনের  সংজ্ঞা এখানে উল্লেখ করা হলো—

  • গ্রিক দার্শনিক প্লেটোর মতে, “চিরন্তন এবং বস্তুর মূল প্রকৃতির জ্ঞান অর্জন করাই দর্শনের লক্ষ্য”।
  • অ্যারিস্টটলের মতে, “আদি সত্ত্বার স্বরূপ এবং এ স্বরূপের অঙ্গীভূত যে সব বৈশিষ্ট্য তার অনুসন্ধান করে যে বিজ্ঞান তাই হলাে দর্শন”।
  • হার্বার্ট স্পেন্সার বলেন, “বিশৃঙ্খল জ্ঞান নিম্নমানের জ্ঞান। বিজ্ঞান হলাে আংশিক একীভূত জ্ঞান। বিভিন্ন বিজ্ঞানের সাধারণ সত্যগুলােকে অন্তর্নিবিষ্ট ও দৃঢ়ীকৃত করার ফলে যে সম্পূর্ণ ঐক্য বা জ্ঞান তাই হলো দর্শন”।
  • কানিংহাম বলেন, “মানুষ দার্শনিক হবে কি না, তা কোনাে প্রশ্ন নয়; প্রশ্ন হলাে ভালাে এবং মন্দ এই দুই দর্শনের মধ্যে একটিকে নির্বাচন করা”।
  • শেলিং-এর মতে, “জগৎ ঠিক কি হলে মন একে বুঝতে পারবে এবং মন ঠিক কি হলে জগৎ একে বুঝতে পারবে এটি নির্দিষ্ট করার চেষ্টাই দর্শন”।
  • আর. জে. হার্স্ট-এর মতে, “জগৎ ও মানব প্রকৃতি সম্পর্কে যেসব নির্দিষ্ট মৌলিক সমস্যা আছে তার যৌক্তিক উত্তর অনুসন্ধানই হচ্ছে দর্শন”।
দর্শনের প্রতীক ফ্রি থিংকার ভাষ্কর্য থেকে উৎসাহ পেয়ে এই থ্রিডি আর্টটি করেব Vinicius "amnx" Amano
দর্শনের প্রতীক ফ্রি থিংকার ভাষ্কর্য থেকে উৎসাহ পেয়ে এই থ্রিডি আর্টটি করেব Vinicius “amnx” Amano (Unsplash থেকে নেওয়া)।

উপর্যুক্ত সংজ্ঞাগুলোকে পর্যালোচনা করলে দেখা যায় যে, জীবন ও জগৎকে ঘিরে উদ্ভূত মৌলিক সমস্যাবলির যৌক্তিক অনুসন্ধান এবং চলার পথে তার যৌক্তিক প্রতিফলন ঘটানোকে দর্শন বলে।।

শেয়ার করুন

3 thoughts on “দর্শন কাকে বলে বা দর্শনের সংজ্ঞা কী?

  1. জীবন ও জগৎকে নিরপেক্ষ দৃষ্টিকোণ থেকে নিখুঁত ভাবে দেখা হলো দর্শন। যিনি এ কাজটি করতে পারেন, তিনি দার্শনিক। আপনি যত‌ই জ্ঞান অর্জন করুন না কেন, নিরপেক্ষ দৃষ্টিকোণ থেকে নিখুঁত ভাবে দেখতে না পারলে সে জ্ঞান জগতের কল্যাণের পরিবর্তে অকল্যাণ বয়ে আনতে পারে। তাই সকল মানুষের দার্শনিক হ‌ওয়া দরকার। দার্শনিক হতে না পারলে মানব জন্ম বৃথা।

  2. জগৎ ও মানব প্রকৃতি সম্পর্কে যেসব নির্দিষ্ট মৌলিক সমস্যা আছে তার যৌক্তিক উত্তর অনুসন্ধানই হচ্ছে দর্শন”। জীবন ও জগৎকে ঘিরে উদ্ভূত মৌলিক সমস্যাবলির যৌক্তিক অনুসন্ধান এবং চলার পথে তার যৌক্তিক প্রতিফলন টানোকে দর্শন বলে।

মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার তথ্য সংরক্ষিত রাখুন

লেখকতথ্য

কন্ট্রিবিউটর, বিশ্লেষণ
তাহসান খান এবং মুনজেরিন শহীদের দুটি প্রফেশনাল কমিউনিকেশন কোর্স করুন ২৮% ছাড়ে
তাহসান খান এবং মুনজেরিন শহীদের দুটি প্রফেশনাল কমিউনিকেশন কোর্স করুন ২৮% ছাড়ে

২৮℅ ছাড় পেতে ৩০/০৬/২০২৪ তারিখের মধ্যে প্রোমো কোড “professional10” ব্যবহার করুন। বিস্তারিত জানতে ও ভর্তি হতে ক্লিক করুন এখানে

দর্শন কাকে বলে বা দর্শনের সংজ্ঞা কী?

প্রকাশ: ১০:৪৮:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২

দর্শনের সুস্পষ্ট কোনো সংজ্ঞা এক কথায় অল্প কথায় প্রদান করা সম্ভব নয়। তবে ইতিহাস সাক্ষী, যুগে যুগে ব্যক্তি বিভিন্নভাবে দর্শনের সংজ্ঞা দিয়েছেন বা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। ইতিহাসখ্যাত দার্শনিকগণ যে সকল সংজ্ঞা প্রদান করেছেন তা পর্যালােচনা করলে যে সারসংক্ষেপ পাওয়া যায় তাতে দেখা যায় যে, প্রত্যেক দার্শনিকই জগৎ জীবনের ব্যাখ্যা, জগতের সঙ্গে জীবনের সম্পর্ক, স্রষ্টার সংগে সৃষ্টির সম্পর্ক ইত্যাদির ওপর গুরুত্বারােপ করেছেন।

দর্শনের কয়েকটি প্রামাণ্য সংজ্ঞা

কয়েকজন বিখ্যাত দার্শনিক কর্তৃক প্রদত্ত দর্শনের  সংজ্ঞা এখানে উল্লেখ করা হলো—

  • গ্রিক দার্শনিক প্লেটোর মতে, “চিরন্তন এবং বস্তুর মূল প্রকৃতির জ্ঞান অর্জন করাই দর্শনের লক্ষ্য”।
  • অ্যারিস্টটলের মতে, “আদি সত্ত্বার স্বরূপ এবং এ স্বরূপের অঙ্গীভূত যে সব বৈশিষ্ট্য তার অনুসন্ধান করে যে বিজ্ঞান তাই হলাে দর্শন”।
  • হার্বার্ট স্পেন্সার বলেন, “বিশৃঙ্খল জ্ঞান নিম্নমানের জ্ঞান। বিজ্ঞান হলাে আংশিক একীভূত জ্ঞান। বিভিন্ন বিজ্ঞানের সাধারণ সত্যগুলােকে অন্তর্নিবিষ্ট ও দৃঢ়ীকৃত করার ফলে যে সম্পূর্ণ ঐক্য বা জ্ঞান তাই হলো দর্শন”।
  • কানিংহাম বলেন, “মানুষ দার্শনিক হবে কি না, তা কোনাে প্রশ্ন নয়; প্রশ্ন হলাে ভালাে এবং মন্দ এই দুই দর্শনের মধ্যে একটিকে নির্বাচন করা”।
  • শেলিং-এর মতে, “জগৎ ঠিক কি হলে মন একে বুঝতে পারবে এবং মন ঠিক কি হলে জগৎ একে বুঝতে পারবে এটি নির্দিষ্ট করার চেষ্টাই দর্শন”।
  • আর. জে. হার্স্ট-এর মতে, “জগৎ ও মানব প্রকৃতি সম্পর্কে যেসব নির্দিষ্ট মৌলিক সমস্যা আছে তার যৌক্তিক উত্তর অনুসন্ধানই হচ্ছে দর্শন”।
দর্শনের প্রতীক ফ্রি থিংকার ভাষ্কর্য থেকে উৎসাহ পেয়ে এই থ্রিডি আর্টটি করেব Vinicius "amnx" Amano
দর্শনের প্রতীক ফ্রি থিংকার ভাষ্কর্য থেকে উৎসাহ পেয়ে এই থ্রিডি আর্টটি করেব Vinicius “amnx” Amano (Unsplash থেকে নেওয়া)।

উপর্যুক্ত সংজ্ঞাগুলোকে পর্যালোচনা করলে দেখা যায় যে, জীবন ও জগৎকে ঘিরে উদ্ভূত মৌলিক সমস্যাবলির যৌক্তিক অনুসন্ধান এবং চলার পথে তার যৌক্তিক প্রতিফলন ঘটানোকে দর্শন বলে।।