জীবনবিমায় প্রিমিয়াম, বোনাস এবং বার্ষিকবৃত্তি

প্রিমিয়াম (Premium) 

বিমার মূল উপাদান হলো প্রিমিয়াম। বিমা গ্রহীতা বিমাকারীকে ঝুঁকি গ্রহণের প্রতিদান হিসেবে কিস্তিভিত্তিক প্রিমিয়াম প্রদান করে। প্রিমিয়াম হলো বিমা চুক্তির এমন একটি অপরিহার্য উপাদান যা বিমাকারীর প্রতিশ্রুতির প্রতিদানস্বরূপ। এ প্রিমিয়ামের পরিমাণ নির্ধারণ করার সময় নানা বিষয় বিচার বিবেচনা করতে হয়।

জীবনবিমার প্রিমিয়াম নির্ধারণকারী উপাদানসমূহ (Determining Factors of Premium)

জীবন বিমার প্রিমিয়াম নির্ধারণের সময় বিবেচ্যবিষয়গুলো নিচে আলোচনা করা হলো: 

১. বিমাপত্রের মূল্য: পলিসি বা বিমাপত্রের পরিমাণ বেশি হলে প্রিমিয়াম বেশি হবে, আর দাবীর পরিমাণ কম হলে প্রিমিয়াম কম হবে। এ কারণে পলিসি প্রিমিয়াম নির্ধারণের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। 

২. পলিসির মেয়াদ: পলিসির একটি মেয়াদ থাকে। পলিসি মেয়াদের উপর প্রিমিয়ামের হার নির্ভর করে। মেয়াদ বেশি হলে প্রিমিয়াম কম হবে, আবার মেয়াদ কম হলে প্রিমিয়াম বেশি হবে। 

৩. চুক্তির প্রকৃতি: বিমাতে যে যত বেশি সুবিধা গ্রহণ করবে তাকে তত বেশি প্রিমিয়াম দিতে হবে। 

৪. বিমায় ঝুঁকির প্রকৃতি: বিমার মাধ্যম ঝুঁকি প্রতিরোধ করা হয়। তাই বিমাকারী যত বেশি ঝুঁকি গ্রহণ করবে, প্রিমিয়ামের পরিমাণও তত বেশি হবে। অন্যদিকে কম ঝুঁকি সম্পন্ন পলিসি গ্রহণ করলে কম প্রিমিয়াম হবে।

বোনাস (Bonus)

বিমা কোম্পানি প্রিমিয়াম থেকে প্রাপ্ত অর্থ অন্যত্র লগ্নি করে মুনাফা অর্জন করে। তাই কোন কোন পলিসিতে বিমা গ্রহীতা বিমা কোম্পানির কাছ থেকে লাভের অংশ পেয়ে থাকে। যখন কোন বিমা কোম্পানি কোন বিমাগ্রহীতাকে তার লাভের অংশ দেয় তাকে বোনাস বলে। সাধারণত, বিমা গ্রহীতাদের কাছ থেকে অধিক অর্থ পাওয়ার জন্য বোনাস প্রদান করা হয়ে থাকে। বিভিন্ন প্রকার বোনাসের বর্ণনা দেওয়া হলো:

১. তাৎক্ষণিক বোনাস: যখন বিমাকারী কোম্পানি মুনাফা ঘোষণা দেওয়ার সাথে সাথে মুনাফাযুক্ত পলিসির বিপরীতে বোনাস প্রদান করে, তখন তাকে তাৎক্ষণিক বোনাস বলে। 

২. বিলম্বিত বোনাস: যেক্ষেত্রে বিমা কোম্পানি কোন একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বিমাগ্রহীতাকে বোনাস প্রদান বন্ধ রেখে ভবিষ্যৎ কোন নির্ধারিত সময়ে বোনাস প্রদান করে, তাকে বিলম্বিত বোনাস বলে।

৩. অন্তবর্তীকালীন বোনাস: অনেক সময় বোনাস ঘোষণা ছাড়াও দু’টি বোনাসের মধ্যবর্তী সময় বিমাকারী যে বোনাস প্রদান করে, তাকে অন্তবর্তীকালীন বোনাস বলে। 

৪. টাইম বোনাস: এরূপ পলিসিতে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বোনাস প্রদান বন্ধ রাখা হয় এবং উক্ত সময়শেষে বিমাগ্রহীতা বেঁচে থাকলে তাকে বোনাস প্রদান করা হয়। কিন্তু বিমাগ্রহীতার মৃত্যু হলে নোমিনি বা উত্তরাধিকারীদের আর বোনাস প্রদান করা হয় না। এ ধরনের বোনাসকে টাইম বোনাস বলে। 

৫. অবদানভিত্তিক বোনাস: বিমাগ্রহীতা প্রিমিয়াম প্রদানের মাধ্যমে বিমা কোম্পানিতে কি পরিমাণ অবদান রাখে তার ভিত্তিতে বোনাস প্রদান করা হয়। সাধারণত, বিমাগ্রহীতাকে সহায়তা করার জন্য এ ধরনের বোনাস দেওয়া হয়। যার অবদান যত বেশি সে ততবেশী বোনাস পাবে, আর অবদান যত কম সে তত কম বোনাস পাবে। 

বার্ষিকবৃত্তি (Annuity)

বার্ষিকবৃত্তি হলো বৃত্তিধারীর অবশিষ্ট জীবনের জন্য বা কোন নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নির্দিষ্ট সময় পরপর সমপরিমাণের অর্থ পরিশোধের ব্যবস্থা। এ ধরনের ব্যবস্থায় বিমাগ্রহীতা একটি নির্দিষ্ট সময় পরপর একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রিমিয়াম আকারে বিমা কোম্পানির কাছে জমা করে। এ জমাকৃত অর্থ মেয়াদশেষে একটি বড় আকারের মূলধনে পরিণত হয়। 

বিমাগ্রহীতার মৃত্যু হলে বা তার বৃদ্ধ বয়সে প্রতিমাসে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বিমা কোম্পানি অব্যাহতভাবে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রদান করতে থাকে। এটাই মূলত: বার্ষিকবৃত্তি বা Annuity। সাধারণত, বার্ষিকবৃত্তি বছরে একবার প্রদান করা হয়, তবে বৃত্তিধারীর সুবিধার্থে ষান্মাসিক, ত্রৈমাসিক, এমনকি মাসিক হারেও বৃত্তি প্রদানের ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে। বছরে সমস্থিতিতে দেওয়া হলে তাকে অধিবৃত্তি বলে।

সারকথা

বিমার মূল উপাদান হলো প্রিমিয়াম। বিমমা গ্রহীতা বিমাকারীকে ঝুঁকি গ্রহণের প্রতিদান হিসেবে প্রিমিয়াম প্রদান করে। কোনো বিমার প্রতিদান হিসেবে নিয়মমাফিক যে অর্থ পরিশোধ করা হয় তাকেপ্রিমিয়াম বলে। বিমার প্রিমিয়াম নির্ভর করে পলিসিগ্রহীতা কত টাকার বিমাপত্র গ্রহণ করছে তার উপর। পলিসির পরিমাণ বেশি হলে প্রিমিয়াম বেশি হবে, আর পলিসির পরিমাণ কম হলে প্রিমিয়াম কম হবে। পলিসির মেয়াদের উপর প্রিমিয়ামের হার নির্ভর করে। চুক্তির প্রকৃতির উপরও বিমার হার নির্ভর করে। কোম্পানি যদি বিমাগ্রহীতাকে বিনিয়োগ থেকে প্রাপ্ত লভ্যাংশ প্রদান করার শর্ত যুক্ত বিমাপত্র প্রদান করে, তবে প্রিমিয়ামের হার অপেক্ষাকৃত বেশি হবে। কোনো কোনো পলিসিতে বিমাগ্রহীতা বিমা কোম্পানির কাছে থেকে লাভের অংশ পেয়ে থাকে। যখন কোন বিমা কোম্পানি কোন বিমাগ্রহীতাকে তার লাভের অংশ দেয়, তাকে বোনাস বলে।

প্রিমিয়াম (Premium) 

বিমার মূল উপাদান হলো প্রিমিয়াম। বিমা গ্রহীতা বিমাকারীকে ঝুঁকি গ্রহণের প্রতিদান হিসেবে কিস্তিভিত্তিক প্রিমিয়াম প্রদান করে। প্রিমিয়াম হলো বিমা চুক্তির এমন একটি অপরিহার্য উপাদান যা বিমাকারীর প্রতিশ্রুতির প্রতিদানস্বরূপ। এ প্রিমিয়ামের পরিমাণ নির্ধারণ করার সময় নানা বিষয় বিচার বিবেচনা করতে হয়।

জীবনবিমার প্রিমিয়াম নির্ধারণকারী উপাদানসমূহ (Determining Factors of Premium)

জীবন বিমার প্রিমিয়াম নির্ধারণের সময় বিবেচ্যবিষয়গুলো নিচে আলোচনা করা হলো: 

১. বিমাপত্রের মূল্য: পলিসি বা বিমাপত্রের পরিমাণ বেশি হলে প্রিমিয়াম বেশি হবে, আর দাবীর পরিমাণ কম হলে প্রিমিয়াম কম হবে। এ কারণে পলিসি প্রিমিয়াম নির্ধারণের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। 

২. পলিসির মেয়াদ: পলিসির একটি মেয়াদ থাকে। পলিসি মেয়াদের উপর প্রিমিয়ামের হার নির্ভর করে। মেয়াদ বেশি হলে প্রিমিয়াম কম হবে, আবার মেয়াদ কম হলে প্রিমিয়াম বেশি হবে। 

৩. চুক্তির প্রকৃতি: বিমাতে যে যত বেশি সুবিধা গ্রহণ করবে তাকে তত বেশি প্রিমিয়াম দিতে হবে। 

৪. বিমায় ঝুঁকির প্রকৃতি: বিমার মাধ্যম ঝুঁকি প্রতিরোধ করা হয়। তাই বিমাকারী যত বেশি ঝুঁকি গ্রহণ করবে, প্রিমিয়ামের পরিমাণও তত বেশি হবে। অন্যদিকে কম ঝুঁকি সম্পন্ন পলিসি গ্রহণ করলে কম প্রিমিয়াম হবে।

বোনাস (Bonus)

বিমা কোম্পানি প্রিমিয়াম থেকে প্রাপ্ত অর্থ অন্যত্র লগ্নি করে মুনাফা অর্জন করে। তাই কোন কোন পলিসিতে বিমা গ্রহীতা বিমা কোম্পানির কাছ থেকে লাভের অংশ পেয়ে থাকে। যখন কোন বিমা কোম্পানি কোন বিমাগ্রহীতাকে তার লাভের অংশ দেয় তাকে বোনাস বলে। সাধারণত, বিমা গ্রহীতাদের কাছ থেকে অধিক অর্থ পাওয়ার জন্য বোনাস প্রদান করা হয়ে থাকে। বিভিন্ন প্রকার বোনাসের বর্ণনা দেওয়া হলো:

১. তাৎক্ষণিক বোনাস: যখন বিমাকারী কোম্পানি মুনাফা ঘোষণা দেওয়ার সাথে সাথে মুনাফাযুক্ত পলিসির বিপরীতে বোনাস প্রদান করে, তখন তাকে তাৎক্ষণিক বোনাস বলে। 

২. বিলম্বিত বোনাস: যেক্ষেত্রে বিমা কোম্পানি কোন একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বিমাগ্রহীতাকে বোনাস প্রদান বন্ধ রেখে ভবিষ্যৎ কোন নির্ধারিত সময়ে বোনাস প্রদান করে, তাকে বিলম্বিত বোনাস বলে।

৩. অন্তবর্তীকালীন বোনাস: অনেক সময় বোনাস ঘোষণা ছাড়াও দু’টি বোনাসের মধ্যবর্তী সময় বিমাকারী যে বোনাস প্রদান করে, তাকে অন্তবর্তীকালীন বোনাস বলে। 

৪. টাইম বোনাস: এরূপ পলিসিতে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বোনাস প্রদান বন্ধ রাখা হয় এবং উক্ত সময়শেষে বিমাগ্রহীতা বেঁচে থাকলে তাকে বোনাস প্রদান করা হয়। কিন্তু বিমাগ্রহীতার মৃত্যু হলে নোমিনি বা উত্তরাধিকারীদের আর বোনাস প্রদান করা হয় না। এ ধরনের বোনাসকে টাইম বোনাস বলে। 

৫. অবদানভিত্তিক বোনাস: বিমাগ্রহীতা প্রিমিয়াম প্রদানের মাধ্যমে বিমা কোম্পানিতে কি পরিমাণ অবদান রাখে তার ভিত্তিতে বোনাস প্রদান করা হয়। সাধারণত, বিমাগ্রহীতাকে সহায়তা করার জন্য এ ধরনের বোনাস দেওয়া হয়। যার অবদান যত বেশি সে ততবেশী বোনাস পাবে, আর অবদান যত কম সে তত কম বোনাস পাবে। 

বার্ষিকবৃত্তি (Annuity)

বার্ষিকবৃত্তি হলো বৃত্তিধারীর অবশিষ্ট জীবনের জন্য বা কোন নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নির্দিষ্ট সময় পরপর সমপরিমাণের অর্থ পরিশোধের ব্যবস্থা। এ ধরনের ব্যবস্থায় বিমাগ্রহীতা একটি নির্দিষ্ট সময় পরপর একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রিমিয়াম আকারে বিমা কোম্পানির কাছে জমা করে। এ জমাকৃত অর্থ মেয়াদশেষে একটি বড় আকারের মূলধনে পরিণত হয়। 

বিমাগ্রহীতার মৃত্যু হলে বা তার বৃদ্ধ বয়সে প্রতিমাসে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বিমা কোম্পানি অব্যাহতভাবে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রদান করতে থাকে। এটাই মূলত: বার্ষিকবৃত্তি বা Annuity। সাধারণত, বার্ষিকবৃত্তি বছরে একবার প্রদান করা হয়, তবে বৃত্তিধারীর সুবিধার্থে ষান্মাসিক, ত্রৈমাসিক, এমনকি মাসিক হারেও বৃত্তি প্রদানের ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে। বছরে সমস্থিতিতে দেওয়া হলে তাকে অধিবৃত্তি বলে।

সারকথা

বিমার মূল উপাদান হলো প্রিমিয়াম। বিমমা গ্রহীতা বিমাকারীকে ঝুঁকি গ্রহণের প্রতিদান হিসেবে প্রিমিয়াম প্রদান করে। কোনো বিমার প্রতিদান হিসেবে নিয়মমাফিক যে অর্থ পরিশোধ করা হয় তাকেপ্রিমিয়াম বলে। বিমার প্রিমিয়াম নির্ভর করে পলিসিগ্রহীতা কত টাকার বিমাপত্র গ্রহণ করছে তার উপর। পলিসির পরিমাণ বেশি হলে প্রিমিয়াম বেশি হবে, আর পলিসির পরিমাণ কম হলে প্রিমিয়াম কম হবে। পলিসির মেয়াদের উপর প্রিমিয়ামের হার নির্ভর করে। চুক্তির প্রকৃতির উপরও বিমার হার নির্ভর করে। কোম্পানি যদি বিমাগ্রহীতাকে বিনিয়োগ থেকে প্রাপ্ত লভ্যাংশ প্রদান করার শর্ত যুক্ত বিমাপত্র প্রদান করে, তবে প্রিমিয়ামের হার অপেক্ষাকৃত বেশি হবে। কোনো কোনো পলিসিতে বিমাগ্রহীতা বিমা কোম্পানির কাছে থেকে লাভের অংশ পেয়ে থাকে। যখন কোন বিমা কোম্পানি কোন বিমাগ্রহীতাকে তার লাভের অংশ দেয়, তাকে বোনাস বলে।

এ বিষয়ের আরও নিবন্ধ

মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা বা হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বলতে কী বোঝায়

মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা বা হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট (Human Resource management) হলো একই সঙ্গে একটি অধ্যয়নের বিষয় ও ব্যবস্থাপনা কৌশল যা একটি প্রতিষ্ঠানের...

ডিজিটাল লোন: ডিজিটাল লোন অ্যাপ কী এবং এর সুবিধা ও অসুবিধা

কার অর্থের প্রয়োজন নেই? মাঝেমধ্যেই আমাদের জীবনে এমন কিছু ঘটনা ঘটে যার কারণে প্রায়শই বিভিন্ন খাতে খরচ করতে হয়। সব সময় যে...

প্রশাসন এবং ব্যবস্থাপনার ধারণা, পরিসর ও পার্থক্য

কোনো প্রতিষ্ঠান পরিচালনার জন্য নীতি প্রণয়ন করা প্রশাসনের কাজ এবং সে নীতিগুলো সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়িত হচ্ছে কিনা তা দেখাশোনা ও তদারকি করার দায়িত্ব...

Banking: বাংলাদেশে কি টাকার তুলনায় ব্যাংকের সংখ্যা বেশি?

ব্যাংকিং খাতকে অর্থনীতির চালিকাশক্তি বলা হয়। ব্যাংকের অন্যতম কাজ হলো দেশের অর্থনীতি ও ব্যবসার চাকা সচল রাখতে ঋণ দেয়া এবং সময়মতো সে...
আরও পড়তে পারেন

টপ্পা গান কী, টপ্পা গানের উৎপত্তি, বাংলায় টপ্পা গান ও এর বিশেষত্ব

টপ্পা গান এক ধরনের লোকিক গান বা লোকগীতি যা ভারত ও বাংলাদেশের বাংলা ভাষাভাষী মানুষের কাছে খুবই প্রিয়। এই টপ্পা গান বলতে...

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বলতে কী বোঝায় এবং ভারতীয় উপমহাদেশে রাজনীতি বা রাষ্ট্রচিন্তা

রাষ্ট্রবিজ্ঞান (Political Science) সমাজবিজ্ঞানের একটি শাখাবিশেষ যেখানে পরিচালন প্রক্রিয়া, রাষ্ট্র, সরকার এবং রাজনীতি সম্পর্কীয় বিষয়াবলী নিয়ে আলোকপাত করা হয়।  এরিস্টটল রাষ্ট্রবিজ্ঞানকে রাষ্ট্র...

গণতন্ত্রের সংজ্ঞা কী বা গণতন্ত্র বলতে কী বোঝায়

গণতন্ত্র বলতে কোনো জাতিরাষ্ট্রের অথবা কোনো সংগঠনের এমন একটি শাসনব্যবস্থাকে বা পরিচালনাব্যবস্থাকে বোঝায় যেখানে নীতিনির্ধারণ বা সরকারি প্রতিনিধি নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রত্যেক নাগরিক...

সমাজতন্ত্র কী? সমাজতন্ত্রের উৎপত্তি, ইতিহাস, বৈশিষ্ট্য, সুবিধা, অসুবিধা ও অর্থনীতি

সোভিয়েত ইউনিয়নে সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র কায়েম করা হয়েছিল ১৯১৭ সালে। সমাজতন্ত্রে বৈরি শ্রেণি নেই, কেননা কলকারখানা, ভূমি, সবই সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্রের সম্পত্তি। সমাজতন্ত্রে শ্রেণি...

জীবনী: সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী

সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী ছিলেন একজন বাঙালি লেখক ও কবি। তিনি উনিশ ও বিশ শতকে বাঙালি মুসলিম পুনর্জাগরণের প্রবক্তাদের একজন। সিরাজী মুসলিমদের...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here