জীবনবিমা: দাবি আদায় পদ্ধতি

জীবনবিমা একধরনের চুক্তি। চুক্তির মেয়াদ শেষ হলে বা চুক্তির মেয়াদে বিমাকারী মারা গেলে বিমাকারী বা তার পোষ্য অর্থ প্রাপ্তির অধিকারী হয়; এটাই বিমা দাবি।

বিমার দাবি আদায় পদ্ধতি (Recovery Procedure of Insurance Claim)

জীবনবিমার দাবি আদায় পদ্ধতিকে প্রধানতঃ 

দু’ভাবে ভাগ করা যায়। 

১. জীবনবিমা চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর বিমা দাবি আদায় পদ্ধতি

বিমাকৃত ব্যক্তি যে মেয়াদের জন্য বিমা করে সে সময় শেষ হওয়ার পর বিমা দাবি পরিপক্ক হয় ও বিমার দাবি পরিশোধের জন্য বিমাকারীর কাছে দাবি উপস্থাপন করা হয়। বিমা কোম্পানি বিমাগ্রহীতার দাবির পর বিমার মোট টাকা বিমাগ্রহীতা বা তার মনোনীত ব্যক্তিকে প্রদান করে। 

২. জীবনবিমা চুক্তির মেয়াদের মধ্যে বিমাগ্রহীতার মৃত্যু হলে বিমাদাবি আদায় পদ্ধতি

বিমাগ্রহীতার বিমার সময়কালে মৃত্যু হলে বিমাগ্রহীতার মনোনীত ব্যক্তি বা বিমাগ্রহীতার উত্তরাধিকারী বিমাদাবি আদায়ের সম্ভাব্য ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। সেক্ষেত্রে বিমাকারী কোম্পানির কাছে দলিল বা প্রমাণপত্রসমূহ বিমাদাবি পরিশোধ করার জন্য পেশ করতে হবে। 

i. বিমাগ্রহীতার মৃত্যুর প্রমাণ

বিমাগ্রহীতার মৃত্যুর প্রমাণপত্রগুলো আইনগতভাবে গ্রহণযোগ্য হবে যদি তা নিম্নরূপ হয়: 

  • চিকিৎসক কর্তৃক প্রদত্ত মৃত্যুর সনদপত্র; 
  • ইউনিয়ন কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বা ওয়ার্ড কমিশনার প্রভৃতি কর্তৃক প্রদত্ত মৃত্যুর সার্টিফিকেট;
  • বিমাগ্রহীতার পরিচিত কোন সম্ভ্রান্ত ব্যক্তি যিনি মৃত্যুর সময় উপস্থিত ছিলেন তাঁর প্রদত্ত প্রমাণপত্র;
  • বিমাগ্রহীতার শেষকৃত্যে উপস্থিত ছিলেন এমন কোন গণ্যমান্য ব্যক্তি কর্তৃক প্রদত্ত প্রমাণপত্র। 

ii. উত্তরাধিকার সনদপত্র

মনোনীত ব্যক্তি বা উত্তরাধিকার বিমার দাবি প্রমাণ করার জন্য উত্তরাধিকার সনদ পত্র সংগ্রহ করে বিমাকারীর নিকট জমা দিতে হবে। কে কত অংশ পাবে তারও প্রমাণ হাজির করতে হবে। 

দুর্ঘটনা বিমার ক্ষেত্রে বিমা দাবি: দুর্ঘটনার কারণে কোন বিমাকৃত ব্যক্তির মৃত্যু হলে সাথে সাথে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিমাকারীকে জানাতে হয় এবং সিভিল সার্জনের ময়না তদন্তসহ অন্যান্য প্রমাণপত্র জমা দিয়ে উত্তরাধিকারীরা বিমা দাবি আদায় করতে পারে। 

iii. বিমা দাবি পরিশোধ

মৃত্যুর সনদ এবং উত্তরাধিকারী সার্টিফিকেট বিমা কোম্পানির নিকট জমা দিলে সব নিরীক্ষা করার পর সন্তোষজনক হলে মনোনীত ব্যক্তি বা উত্তরাধিকারীদেরকে বিমার অর্থ পরিশোধ করা হয়। সমঝোতার মাধ্যমে নিম্ন উপায়ে বিমার অর্থ পরিশোধ করা যায়: 

  • এককালিন পরিশোধ;
  • সুদসহ কয়েক কিস্তিতে পরিশোধের পর মূল অর্থ এককালীন পরিশোধ;
  • সম্পূর্ণ অর্থ একটা নির্দিষ্ট সময়ে বার্ষিক সমান কিস্তিতে পরিশোধ;
  • বিমা দাবির অর্থ বৃত্তি আকারে পরিশোধ।
এ বিষয়ের আরও নিবন্ধ

মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা বা হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বলতে কী বোঝায়

মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা বা হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট (Human Resource management) হলো একই সঙ্গে একটি অধ্যয়নের বিষয় ও ব্যবস্থাপনা কৌশল যা একটি প্রতিষ্ঠানের...

ডিজিটাল লোন: ডিজিটাল লোন অ্যাপ কী এবং এর সুবিধা ও অসুবিধা

কার অর্থের প্রয়োজন নেই? মাঝেমধ্যেই আমাদের জীবনে এমন কিছু ঘটনা ঘটে যার কারণে প্রায়শই বিভিন্ন খাতে খরচ করতে হয়। সব সময় যে...

প্রশাসন এবং ব্যবস্থাপনার ধারণা, পরিসর ও পার্থক্য

কোনো প্রতিষ্ঠান পরিচালনার জন্য নীতি প্রণয়ন করা প্রশাসনের কাজ এবং সে নীতিগুলো সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়িত হচ্ছে কিনা তা দেখাশোনা ও তদারকি করার দায়িত্ব...

Banking: বাংলাদেশে কি টাকার তুলনায় ব্যাংকের সংখ্যা বেশি?

ব্যাংকিং খাতকে অর্থনীতির চালিকাশক্তি বলা হয়। ব্যাংকের অন্যতম কাজ হলো দেশের অর্থনীতি ও ব্যবসার চাকা সচল রাখতে ঋণ দেয়া এবং সময়মতো সে...
আরও পড়তে পারেন

টপ্পা গান কী, টপ্পা গানের উৎপত্তি, বাংলায় টপ্পা গান ও এর বিশেষত্ব

টপ্পা গান এক ধরনের লোকিক গান বা লোকগীতি যা ভারত ও বাংলাদেশের বাংলা ভাষাভাষী মানুষের কাছে খুবই প্রিয়। এই টপ্পা গান বলতে...

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বলতে কী বোঝায় এবং ভারতীয় উপমহাদেশে রাজনীতি বা রাষ্ট্রচিন্তা

রাষ্ট্রবিজ্ঞান (Political Science) সমাজবিজ্ঞানের একটি শাখাবিশেষ যেখানে পরিচালন প্রক্রিয়া, রাষ্ট্র, সরকার এবং রাজনীতি সম্পর্কীয় বিষয়াবলী নিয়ে আলোকপাত করা হয়।  এরিস্টটল রাষ্ট্রবিজ্ঞানকে রাষ্ট্র...

গণতন্ত্রের সংজ্ঞা কী বা গণতন্ত্র বলতে কী বোঝায়

গণতন্ত্র বলতে কোনো জাতিরাষ্ট্রের অথবা কোনো সংগঠনের এমন একটি শাসনব্যবস্থাকে বা পরিচালনাব্যবস্থাকে বোঝায় যেখানে নীতিনির্ধারণ বা সরকারি প্রতিনিধি নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রত্যেক নাগরিক...

সমাজতন্ত্র কী? সমাজতন্ত্রের উৎপত্তি, ইতিহাস, বৈশিষ্ট্য, সুবিধা, অসুবিধা ও অর্থনীতি

সোভিয়েত ইউনিয়নে সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র কায়েম করা হয়েছিল ১৯১৭ সালে। সমাজতন্ত্রে বৈরি শ্রেণি নেই, কেননা কলকারখানা, ভূমি, সবই সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্রের সম্পত্তি। সমাজতন্ত্রে শ্রেণি...

জীবনী: সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী

সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী ছিলেন একজন বাঙালি লেখক ও কবি। তিনি উনিশ ও বিশ শতকে বাঙালি মুসলিম পুনর্জাগরণের প্রবক্তাদের একজন। সিরাজী মুসলিমদের...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here